ইউসিবি ব্যাংক পরিচালনায় আনিসুজ্জামান চৌধুরীর দক্ষতা অতুলনীয়

অনেকেই নতুন কিছু শুরু করতে চায় নিজেদের ভালো ভবিষ্যৎ এর জন্য। অনেকেই সফল হয় আবার অনেকেই হেরে যায়। কিন্তু হেরে যাওয়াটাই কি সবকিছুর সমাধান? আপনি যদি একবার হেরে যান, তাহলে আপনি কি সব ছেড়ে দিবেন? কোনো কিছুর জন্য হেরে যাওয়াটা বড় কিছু ব্যাপার নয়, বরং হেরে গিয়ে সেটার জন্য আবারো লড়াই করাতেই রয়েছে আপনার সাফল্য৷ এমনি একজন মানুষ আমাদের সবার প্রিয় আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনি। যিনি হেরে গিয়েও করেছেন শত চেষ্টা। 

তিনি কোনো কাজেই হার মানেন নি। একবার হেরে গেলে তিনি সেটাতে জয়ী হওয়ার জন্য আবারো লড়াই করতেন। নিজেকে সেই লড়াই এর জন্য গড়ে তুলতেন আবারো। যার জন্য আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনি আজ এতোটা সফলতার অধিকারী। নিজের বাবার গড়ে তোলা ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক টির উন্নয়ন এবং পরিচালনা তার দক্ষতা অতুলনীয়। আসুন এই মূল্যবান টপিক নিয়েই কিছু আলোচনা করা যাক।

জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরীর গড়ে তোলা ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক টিকে তিনি যোগ্যতা ও দক্ষতায় পৌছে দিয়েছেন অন্য এক মাত্রায়। বাংলাদেশ এ এই ব্যাংক টির সুনাম ছিলো আগে থেকেই, কিন্তু আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনি নিজের শ্রম ও বুদ্ধি দ্বারা এই সুনাম টিকে প্রসার করেছে বাংলাদেশ এর কোনায় কোনায়, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক এর নাম এনে দিয়েছে সকল বাংগালীর মুখে মুখে।

১. বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় বেসরকারী এবং দেশ এর ২য় সর্বোচ্চ প্রাইভেট ব্যাংকিং সেক্টির ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড যা আমরা অনেকেই UCB Bank নামে চিনি। জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু এই ব্যাংক টির প্রতিষ্ঠা করে বাংলাদেশ এর ব্যাংকিং সেক্টর এ এক বিপ্লবী পরিবর্তন এনেছিলেন, যার সুবিধা আজও সবাই ভোগ করছেন। মরহুম আখতারুজ্জামান চৌধুরীর উদ্যোগ ও দূরদর্শী নেতৃত্বে যাত্রা শুরু করে ইউসিবি আজ দেশের ব্যাংকিং অঙ্গনে একটি সুপরিচিত নাম। এই ৩৮ বছরের সাফল্যমন্ডিত যাত্রায়, দেশের ব্যবসা, বাণিজ্য ও শিল্পের উন্নয়নে অবদানে আমরা স্পষ্টতই গর্ব করতে পারি।

২. ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক পিএলসি (ইউসিবি ব্যাংক) বাংলাদেশ এর একটি প্রাইভেট ব্যাংক হিসাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে ২৭ জুন, ১৯৮৩ সালে। দেশের সুনামধং এই ব্যাংক ইউনাইটেড কমার্শিয়াল পিএলসি তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করে ১৯৮৩ সালের ২৭ জুন। আমাদের দেশে এই প্রতিষ্ঠিত ব্যাংটির মোট ২০৬ টি শাখা আছে। এছাড়া ইউসিবি ব্যাংকে ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধাও রয়েছে। ব্যাংকের ইন্টারনেট পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহারের মাধ্যমে ক্লায়েন্ট দের ভিসা, মাস্টারকার্ড ও নেক্সাস কার্ডের মাধ্যমে বিল দিতে পারার সুবিধাও রয়েছে। 

৩. আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনির দক্ষতা দ্বারা পুরো দেশজুড়ে ২০৬ টি শাখার বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, ৫৮০ টি এটিএম/সিআরএম, এজেন্ট ব্যাংকিং, ইসলামী ব্যাংকিং-ইউসিবি তাকওয়া, মোবাইল আর্থিক পরিষেবা-উপায়, প্রায়োরিটি ব্যাংকিং – ইম্পেরিয়াল, রেমিট্যান্স পরিষেবা, ক্রেডিট কার্ড ও আরও অনেক পরিষেবা এবং উদ্ভাবনী অনুশীলন ও দক্ষ পরিচালনার মাধ্যমে বেসরকারী খাতের ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্র এক অনন্য অবস্থানে রয়েছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক। 

Know more about: আনিসুজ্জামান বাংলাদেশের অন্যতম সফল উদ্যোক্তা

About admin

Leave a Comment